“চট্টগ্রাম থেকে জনসন অ্যান্ড জনসন: স্বপ্ন ও সংকল্পের গল্প (From Chittagong to Johnson and Johnson: A Tale Of Dreams And Determination)

📌📌জনসন অ্যান্ড জনসন (Johnson & Johnson) প্রতিষ্ঠানটির নামের সাথে আমরা সকলেই পরিচিত। ১৮৮৬ সালে প্রতিষ্ঠিত এই বহুজাতিক কর্পোরেট জায়ান্ট ২০২১ সালের ফরচুন ৫০০ কোম্পানীর তালিকায় ৩৬ তম স্থানে আছে। মজার বিষয় হল AAA রেটিং প্রাপ্ত জনসন অ্যান্ড জনসনের ক্রেডিট রেটিং যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল সরকারের চেয়েও বেশি!! আমাদের দেশে তাদের প্রসাধনী সামগ্রীর কারনে বেশি পরিচিত হলেও জনসন অ্যান্ড জনসনের শুরুটা হয়েছিল ফার্মাসিউটিক্যাল এবং সার্জিক্যাল সামগ্রীর মাধ্যমে। অবশ্য জনসন অ্যান্ড জনসন তাদের শুরুটা নিশ্চয়ই ভুলে নি! হ্যাঁ, জনসন অ্যান্ড জনসনের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান জেনসেন ফার্মাসিউটিক্যালস (Janssen Pharmaceuticals) কোভিড-১৯ মহামারীতে তাদের এডেনোভাইরাল ডেলিভারী ভিত্তিক কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন নিয়ে আলোচনায় সামনে আসে এবং ফাইজার এবং মডার্নার জন্য হয়ে ওঠে এক বিশাল প্রতিযোগিতা।

🔶জনসন অ্যান্ড জনসন এভাবেই প্রতিনিয়ত নিত্য নতুন প্রযুক্তি পৃথিবীর মানুষকে উপহার দিয়ে যাচ্ছে আর শেখাচ্ছে কিভাবে অসম্ভবকে সম্ভব করা যায়! এমন এক প্রতিষ্ঠানে যদি কেউ কাজ করার সুযোগ পায় তাহলে তার অনুভূতিটা কেমন হবে? বা, কিভাবেই বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ এবং মূল্যবান এই প্রতিষ্ঠানে কাজ করার সুযোগ পাওয়া সম্ভব? কিইবা যোগ্যতা হতে হবে এই প্রতিষ্ঠানের সাথে যুক্ত হওয়ার জন্য? বাংলাদেশের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে কি এমন যোগ্যতা অর্জন করা সম্ভব? তৃতীয় বিশ্বের একটি উঠতি দেশে লেখাপড়া করে আমাদের পক্ষে কি সম্ভব অন্যান্য সব দেশের প্রার্থীদের সাথে প্রতিযোগিতায় টেকা? এযেন এক অসম্ভব প্রতিযোগিতা!!

কিন্তু আসলেই কি তাই?

Poster Credit: Abdul Muhaimen Jamil Washi

💠আমরা এমন একজনকে আমাদের সাথে পেতে যাচ্ছি যিনি এই অসম্ভবকে সম্ভব করেছেন। প্রতিযোগিতায় হারিয়েছেন তুখোড় প্রার্থীকে, আর পেয়েছেন জনসন অ্যান্ড জনসনের জেনসেন ফার্মাসিউটিক্যালস-এ গবেষণা ও উন্নয়ন (Research and Development) কো-অপ ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজ করার সুযোগ। তার কাছ থেকেই আমরা নিব এসব প্রশ্নের উত্তর।

🔷তিনি আমাদের দেশেরই একজন, ইকরামুল হক ইহিত। চট্টগ্রামে জন্ম এবং বড় হওয়া ইহিত এস.এস.সি এবং এইচ.এস.সি পাশ করেন চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক কলেজ থেকে। এইচ.এস.সি পরীক্ষায় তিনি ছিলেন চট্টগ্রাম বোর্ডের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ প্রাপ্ত নম্বরের অধিকারী। এরপর বাংলাদেশ প্রকৌশল এবং প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) থেকে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে বি.এসসি সম্পন্ন করে পাড়ি জমান যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান টেকনোলজিক্যাল ইউনিভার্সিটিতে। টয়োটা মোটর কর্পোরেশনের ২য় প্রজন্মের হাইড্রোজেন ফুয়েল সেল-এর কর্মক্ষমতা বাড়ানোর উপর গবেষণা করে এম.এস. ডিগ্রি লাভ করেন যেটি পরবর্তীতে যুক্তরাষ্ট্রে বাজারাজাতকৃত টয়োটা মিরাই গাড়িতে প্রয়োগ করা হয়। তিনি ২য় এম.এস ডিগ্রি লাভ করেন টেনেসি টেকনোলজিক্যাল ইউনিভার্সিটি থেকে। সেখানে তার গবেষণা পরিচালিত হয় US Air Force Office of Scientific Research (AFOSR)-এর অধীনে, যেটি পরবর্তীতে যুদ্ধবিমানের পাখার ত্রুটি পর্যবেক্ষণের জন্য সেন্সর প্রস্তুতের কাজে ব্যবহৃত হয়। এম.এস গবেষণার পাশা পাশি তিনি জন্স হপকিন্স সেন্টার ফর ট্যালেন্টেড ইয়ুথ-এ ১ম বর্ষের শিক্ষার্থীদেরকে রোবটিক্স শেখান। তার প্রাপ্তির ঝুলিতে আরও যোগ হয় তিন মিনিট থিসিস (Three Minute Thesis) প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান এবং Ed Leonard Award of Excellence।

🔺কিন্তু বর্তমানে তিনি পি.এইচ.ডি গবেষণা করছেন একটি ভিন্ন বিষয়ের উপর। ইউনিভার্সিটি অফ টেনেসি, নক্সভিল-এ তিনি বায়োসিস্টেমস ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের পি.এইচ.ডি গবেষণার শেষ পর্যায়ে রয়েছেন। তার এই গবেষণা পৃষ্ঠপোষকতা করছেন Foundation for Food and Agriculture Research (FFAR), যেটি যুক্তরাষ্ট্রের এগ্রো-বায়োটেক প্রতিষ্ঠানসমূহ এবং মন্ত্রণালয়ের সাথে সরাসরি যুক্ত। FFAR ফেলো হিসেবে কর্নেল এবং ফ্রান্সেস ব্র্যাডশ হিউস্টন ফেলোশিপ, Graduate Student with Professional Promise in Biosystems Engineering Award এবং “Lightning Talk” প্রতিযোগিতায় পান পিপলস চয়েস অ্যাওয়ার্ড।🏆

টয়োটা হাইড্রোজেন ফুয়েল সেল ইলেকট্রিক গাড়ি, আমেরিকান যুদ্ধবিমান গবেষণা থেকে বায়োসিস্টেমস ইঞ্জিনিয়ারিং!!! বলে রাখা ভাল যে গবেষণার বিষয় পরিবর্তনের ক্ষেত্রে এটি রাত আর দিনের পার্থক্যের মত পরিবর্তন!! কিন্তু কেন তিনি যান্ত্রিক গবেষণা থেকে বায়োসিস্টেমস-এর দিকে মন দিলেন? বর্তমান বিশ্বের প্রযুক্তিগত উন্নয়ন আর মানুষের জীবনযাত্রায় বায়োসিস্টেমস ইঞ্জিনিয়ারিং-এর দরকারই বা কি? আর কিভাবে এই বায়োসিস্টেমস ইঞ্জিনিয়ারিং-এর এই গবেষণা তাকে জনসন অ্যান্ড জনসন পর্যন্ত নিয়ে গেল?

🔰আমরা এ সব কিছুই জানব ইকরামুল হক ইহিত-এর কাছ থেকে ২৩ ডিসেম্বর ২০২১ বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্টিফিক সোসাইটি কর্তৃক আয়োজিত সেমিনারে।

🔶সেমিনারঃ চট্টগ্রাম থেকে জনসন অ্যান্ড জনসন: স্বপ্ন ও সংকল্পের গল্প

🔷🔶আয়োজকঃ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্টিফিক সোসাইটি

📌স্থানঃ কনফারেন্স রুম, ডিন অফিস, জীববিজ্ঞান অনুষদ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়।

📅তারিখঃ ২৩ ডিসেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার।
সময়ঃ দুপুর ২.০০ টা।

🔷প্রধান বক্তাঃ
ইকরামুল হক ইহিত
(বি.এসসি, যন্ত্র প্রকৌশল, বুয়েট;
এম এস, যন্ত্র প্রকৌশল, মিশিগান টেকনোলজিক্যাল ইউনিভার্সিটি;
এম এস, যন্ত্র প্রকৌশল, টেনেসি টেকনোলজিক্যাল ইউনিভার্সিটি;
পিএইচডি গবেষক, বায়োসিস্টেমস ইঞ্জিনিয়ারিং, ইউনিভার্সিটি অফ টেনেসি, নক্সভিল।)

🔶প্রধান অতিথিঃ
প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আল্‌-ফোরকান,
প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি, জিন প্রকৌশল ও জীবপ্রযুক্তি বিভাগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়,
এবং
উপদেষ্টা, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাইন্টিফিক সোসাইটি।

🔷বিশেষ অতিথিঃ
ড. লায়লা খালেদা,
সহযোগী অধ্যাপক, জিন প্রকৌশল ও জীবপ্রযুক্তি বিভাগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়।
প্রভোস্ট, শামসুন নাহার হল, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়
এবং
উপদেষ্টা, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাইন্টিফিক সোসাইটি।

📌📌At present everyone is familiar with the company named Johnson & Johnson. The pioneering role of this organization in the development of covid vaccine is unparalleled. Although many students have a dream to learn or experience the working process at this famous organization, most of us are unaware how to implement that dream. But today we have Ekramul Haque Ehite among us, who is going to join Johnson & Johnson’s Janssen Pharmaceutical Company as a research and development co-op engineer in 2022.

🔶He was employed as an instructor at the Johns Hopkins Center and as an Activity Counselor at the Michigan Tech Summer Youth Program. Notable among his outstanding achievements are:

– Cornell and Frances Bradshaw Houston Fellowship

– People’s Choice Award, 2021 FFAR Fellows Lightning Talk Competition

– Foundation for Food and Agriculture Research (FFAR) Professional Development Fellowship 2020-2023

– Graduate Student with Professor Promise in Biosystems Engineering Award, UTK

🔷Chief Guest:

Prof. Dr. Md. Al-Forkan,

Professor,

Department of Genetic Engineering and Biotechnology, University of Chittagong,

Adviser,

Chittagong University Scientific Society.

🔶Special Guest:

Dr. Laila Khaleda,

Associate Professor,

Department of Genetic Engineering and Biotechnology, University of Chittagong,

Adviser,

Chittagong University Scientific Society.

💠Featured Speaker:

Ekramul Haque Ehite,

B.S., Mechanical Engineering, BUET

M.S., Mechanical Engineering, Tennessee University of Technology (Specialization: Vibration)

M.S., Mechanical Engineering, Michigan University of Technology (Specialization: Thermofluid)

PhD researcher, University of Tennessee Knoxville

🔶Venue: Conference room, Dean Office,

Faculty of Biological Sciences,

University of Chittagong.

📌📌রেজিস্ট্রেশন লিংকঃ https://docs.google.com/forms/d/e/1FAIpQLSdi2AI31CQW6HGBbk_a32LkpJqOna3D11YsJOKp2P8rM6SNvg/viewform?usp=pp_url

 

Start Time

2:30 pm

December 23, 2021

Finish Time

5:30 pm

December 23, 2021

Event Participants

    1 Comment

  1. January 26, 2022
    Reply

    Greate post. Keep writing such kind of info on your page. Im really impressed by it.

    Hey there, You’ve done a fantastic job. I will certainly digg it and in my view recommend to
    my friends. I am confident they’ll be benefited from this site.

Leave A Reply

Your email address will not be published.